1. admin@notunkurisylhet.com : notun :
বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ১১:০০ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
বাহুবলে বিজয়ী হবার পরই কৃতজ্ঞতা জানাতে লোকালয়ে ঘুরছেন চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যান বাহুবলে জমি সংক্রান্ত বিরোধ দু’পক্ষের সংঘর্ষে আহত ৫ তীর বৃদ্ধ গুরুত্বর অবস্থায় দু’জনকে সিলেট প্রেরণ বাহুবলে ফ্রিপ প্রকল্পের কৃষক গ্রুপের প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত সহকারী প্রিজাইডিং অফিসারের মৃত্যু হবিগঞ্জে ছাড়তে হচ্ছে না ৩ উপজেলা চেয়ারম্যান এর চেয়ার বাহুবলে জামানত হারিয়েছেন বর্তমান চেয়ারম্যান খলিলসহ ৯ প্রার্থী বাহুবলে জাল ভোট দেওয়ায় একজনের ১ বছরের কারাদণ্ড, আটক ২ দ্বিতীয় ধাপের উপজেলা নির্বাচনে কেন্দ্রে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টিকারীদের প্রতি পুলিশ সুপারের হুশিয়ারী বানিয়াচংয়ে সংঘর্ষে নিহত ৩! আহত শতাধিক বাহুবলে ভাইয়ের বিয়ের অনুষ্ঠানে বোনের মুত্যু

মাধবপুরে-২ শিশুকে প্রাপ্তবয়স্ক দেখিয়ে মামলা বাদীর বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা”

শেখ জাহান রনি মাধবপুর হবিগঞ্জ প্রতিনিধি
  • প্রকাশের সময় : শনিবার, ১১ ফেব্রুয়ারী, ২০২৩
  • ২৩২ বার পঠিত

শেখ জাহান রনি, মাধবপুর (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ হবিগঞ্জের মাধবপুরে প্রাপ্তবয়স্ক দেখিয়ে আসামি করা দুই শিশুকে মামলা থেকে অব্যাহতি দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে ওই মামলার বাদীর বিরুদ্ধে পাল্টা মামলা ও গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছে।

 

 

গত বুধবার (৮ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে হবিগঞ্জ চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মো. জাকির হোসাইন এই আদেশ দেন।

 

 

গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি হওয়া ওই বাদীর নাম অমল ভৌমিক। তিনি হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলার মাছ ব্যবসায়ী। বাকিতে মাছ না দেওয়ায় মারধরের অভিযোগে তিনি গত বছরের ৪ আগস্ট থানায় একটি মামলা করেছিলেন।

 

 

আদালতে দেওয়া অভিযোগ ও মামলা সূত্রে জানা গেছে, মাছ ব্যবসায়ী অমল ভৌমিক বাকিতে মাছ না দেওয়ায় ৪ নারীসহ ১৮ জন তাকে মারধর করেন। এঘটনায় মামলা করা হয়। ওই মামলায় ৬ নম্বর আসামি করা হয় আট বছর বয়সী শিশু রফিককে (ছদ্মনাম)। সে একটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণির শিক্ষার্থী। একই মামলায় ১২ নম্বর আসামি করা হয় তার ফুফাতো ভাইকে (১১)।

 

 

সে গ্রামে থাকে না। কয়েক বছর ধরে ঢাকার শাহবাগ এলাকায় একটি ফুলের দোকানে কাজ করে। তারা গত বছরের ১৮ আগস্ট থেকে জামিন পেলেও মাসে মাসে আদালতে এসে হাজিরা দিতে হতো। ভোগান্তি দেখে শিশুদের বয়স বাড়িয়ে মামলা ও হয়রানির অভিযোগে ১৭ জানুয়ারি আদালতে একটি আবেদন করেন তাদের আইনজীবী ফজলে আলী।

 

 

আবেদনে উল্লেখ করা হয়, তৃতীয় শ্রেণির ছাত্র রফিক (ছদ্মনাম)। মারামারির অভিযোগে তার বয়স ১৮ বছর দেখিয়ে থানায় মামলা করেছেন গ্রামের এক বাসিন্দা। শিশুটির বাড়ি হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলার একটি গ্রামে। একই শিশুর ১১ বছর বয়সী এক ফুফাতো ভাইকেও ২৮ বছর বয়স দেখিয়ে একই মামলায় আসামি করা হয়েছে। ৪ নারীসহ এ মামলার আসামি ১৮ জন।

 

 

হবিগঞ্জ চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মো. জাকির হোসাইন আবেদনের ওপর ৮ ফেব্রুয়ারি শুনানির দিন ধার্য করেন। পাশাপাশি মামলার বাদী ও তদন্তকারী পুলিশ কর্মকর্তাকে আদালতে উপস্থিত থাকার নির্দেশ দেন।

 

 

আদালতে বাদী অমল ভৌমিক উপস্থিত ছিলেন না। আদালত শুনানি শেষে বয়স বাড়িয়ে দুই শিশুর বিরুদ্ধে মামলা করায় ওই মামলার বাদী অমল ভৌমিকের বিরুদ্ধে পাল্টা মামলার আদেশ দেন। আগামী সাত দিনের মধ্যে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা উপপরিদর্শক মুখলেছুর রহমানকে এ মামলা করার নির্দেশ দেওয়া হয়। এছাড়া অমল ভৌমিকের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন আদালত এবং ওই দুই শিশুকে মামলা থেকে অব্যাহতি দেন।

 

 

আইনজীবী ফজলে আলী আদেশের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, হয়রানি করার জন্য মিথ্যা তথ্য দিয়ে ও শিশুদের বয়স বাড়িয়ে এ মামলা করা হয়। আদালত নিজে যাচাই-বাছাই করে প্রমাণ পাওয়ার পর এই আদেশ দেন। তবে পুলিশের গাফিলতির বিষয়টিও তারা আদালতের নজরে এনেছিলেন।

 

 

আদালত প্রাঙ্গণে শিশুটি বলে, মামলায় আসামি করায় এবং পুলিশ তার বাড়িতে যাওয়ায় সহপাঠীরা এ নিয়ে টিকা–টিপ্পনী করে। যে কারণে সে লজ্জায় স্কুলে যাওয়া বন্ধ করে দিয়েছে। প্রতি মাসে সে মামার সঙ্গে আদালতে আসা-যাওয়া করলেও কী কারণে আসে, সেটা সে জানে না।

 

 

শিশুটির ফুফাতো ভাই বলে, মামলার বিষয়ে সে কিছুই জানে না। তার বাবা জামিনের আগে তাকে ঢাকা থেকে বাড়িতে নিয়ে আসেন। সে এখনো ঢাকায় থাকে। সেখান থেকেই প্রতি মাসে আদালতে আসা-যাওয়া করতে হচ্ছে।

 

 

আদালতে শিশুদের সঙ্গে আসা অভিভাবক শেখ কামরুল হাসান বলেন, হয়রানি করতে বাদী শিশুদের বিরুদ্ধে মামলা করেন। আদালত আজ দুই শিশুকে মামলা থেকে অব্যাহতি দেওয়ায় তারা বড় ধরনের হয়রানি থেকে মুক্তি পেলেন।

 

এটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর
© All rights reserved © 2024
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: FT It Hosting