1. admin@notunkurisylhet.com : notun :
রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ০৮:২৩ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
বাহুবলে করাঙ্গী নদীর বাঁধ ভেঙে এলাকা প্লাবিত।। পানিবন্দি বাসিন্দারা বাহুবলে বিজয়ী হবার পরই কৃতজ্ঞতা জানাতে লোকালয়ে ঘুরছেন চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যান বাহুবলে জমি সংক্রান্ত বিরোধ দু’পক্ষের সংঘর্ষে আহত ৫ তীর বৃদ্ধ গুরুত্বর অবস্থায় দু’জনকে সিলেট প্রেরণ বাহুবলে ফ্রিপ প্রকল্পের কৃষক গ্রুপের প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত সহকারী প্রিজাইডিং অফিসারের মৃত্যু হবিগঞ্জে ছাড়তে হচ্ছে না ৩ উপজেলা চেয়ারম্যান এর চেয়ার বাহুবলে জামানত হারিয়েছেন বর্তমান চেয়ারম্যান খলিলসহ ৯ প্রার্থী বাহুবলে জাল ভোট দেওয়ায় একজনের ১ বছরের কারাদণ্ড, আটক ২ দ্বিতীয় ধাপের উপজেলা নির্বাচনে কেন্দ্রে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টিকারীদের প্রতি পুলিশ সুপারের হুশিয়ারী বানিয়াচংয়ে সংঘর্ষে নিহত ৩! আহত শতাধিক

বাহুবলে ভাতিজাদের হাতে চাচা রক্তাক্ত সিলেট ওসমানী মেডিকেলে প্রেরণ” থানায় অভিযোগ

বাহুবল প্রতিনিধি
  • প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ৬ অক্টোবর, ২০২২
  • ২৮৪ বার পঠিত

বাহুবল প্রতিনিধিঃ বাহুবলে জমি সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে ভাতিজাদের হাতে চাচা আব্দুল মালেক নামে এক ব্যক্তি রক্তাক্ত আহত হয়েছে।আশংকাজনক অবস্থায় তাকে সিলেট ওসমানী হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

ঘটনাটি ঘটেছে বৃহস্পতিবার ৬ অক্টোবর সকালে বাহুবল উপজেলার সদর ইউনিয়নের দশকাহনিয়া গ্রামে।

 

জানা যায়,বাহুবল উপজেলার ৪নং সদর ইউনিয়নের দশকাহনিয়া গ্রামের মৃত আব্দুস সালাম মিয়ার ছেলে নায়েব হোসেন ও মোশাররফ হোসেনের সাথে জমি সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে চাচা হাজী আব্দুল মালেক এর সাথে দীর্ঘদিন যাবত বিরোধ চলে আসছিলো।

 

বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৯ টার দিকে হঠাৎ নায়েব হোসেন(২৮) ও মোশাররফ হোসেন(২৫)একদল লোক নিয়ে আব্দুল মালেক মিয়ার সীমানার খুঁটি উপরে ফেলে দিয়ে বাউন্ডারি নির্মাণের চেষ্টা চালায়।

 

এসময় আব্দুল মালেক মিয়া তাদেরকে বাঁধা দিলে নায়েব হোসেন ও মোশাররফ হোসেন সহ তাদের লোকজন আব্দুল মালেক মিয়ার উপর দেশীয় অস্ত্র সশস্ত্র নিয়ে হামলা চালায়।

 

তাদের হামলায় আব্দুল মালেক মিয়া রক্তাক্ত আহত হয়,এমতাবস্থায় আশপাশের লোকজন এগিয়ে এসে আব্দুল মালেক মিয়াকে উদ্ধার করে বাহুবল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে তার অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়।

 

এ ঘটনায় আব্দুল মালেক মিয়ার ছেলে মোঃ সামসুল ইসলাম ফেরদৌস বাদী হয়ে নায়েব হোসেন, মোশাররফ হোসেন ও জিসান মিয়ার বিরুদ্ধে বাহুবল মডেল থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

এটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর
© All rights reserved © 2024
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: FT It Hosting