1. admin@notunkurisylhet.com : notun :
সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ০৭:৪৯ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
বাহুবলে করাঙ্গী নদীর বাঁধ ভেঙে এলাকা প্লাবিত।। পানিবন্দি বাসিন্দারা বাহুবলে বিজয়ী হবার পরই কৃতজ্ঞতা জানাতে লোকালয়ে ঘুরছেন চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যান বাহুবলে জমি সংক্রান্ত বিরোধ দু’পক্ষের সংঘর্ষে আহত ৫ তীর বৃদ্ধ গুরুত্বর অবস্থায় দু’জনকে সিলেট প্রেরণ বাহুবলে ফ্রিপ প্রকল্পের কৃষক গ্রুপের প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত সহকারী প্রিজাইডিং অফিসারের মৃত্যু হবিগঞ্জে ছাড়তে হচ্ছে না ৩ উপজেলা চেয়ারম্যান এর চেয়ার বাহুবলে জামানত হারিয়েছেন বর্তমান চেয়ারম্যান খলিলসহ ৯ প্রার্থী বাহুবলে জাল ভোট দেওয়ায় একজনের ১ বছরের কারাদণ্ড, আটক ২ দ্বিতীয় ধাপের উপজেলা নির্বাচনে কেন্দ্রে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টিকারীদের প্রতি পুলিশ সুপারের হুশিয়ারী বানিয়াচংয়ে সংঘর্ষে নিহত ৩! আহত শতাধিক

নদীর পরিবেশ দূষণের সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দিয়েছেন আদালত

স্টাফ রিপোর্ট
  • প্রকাশের সময় : শুক্রবার, ৩ ডিসেম্বর, ২০২১
  • ৯৭ বার পঠিত

ফেনীতে কালিদাস পাহালিয়া নদীর পরিবেশ দূষণের সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দিয়েছেন জেলার স্পেশাল ম্যাজিস্ট্রেট মো. জাকির হোসাইন।

 

মঙ্গলবার ফেনী জেলা আইনজীবী সমিতির তিন জন সদস্য এ্যাডভোকেট বোরহান উদ্দিন চৌধুরী, এ্যাডভোকেট কাজী মো: শাহ জালাল ও এ্যাডভোকেট মো: আবুল বাশার এ সংক্রান্তে গণমাধ্যমে প্রকাশিত একটি সংবাদ আদালতের নজরে আনলে পরিবেশ আদালতের স্পেশাল ম্যাজিস্ট্রেট মো: জাকির হোসাইন স্বপ্রণোদিত হয়ে এই আদেশ দেন।

 

আদালত সূত্রে জানা যায়, ফেনী সদর উপজেলা ও সোনাগাজী উপজেলাধীন কালিদাস পাহাালিয়া নদীতে পোল্ট্রি খামারের বর্জ্য, মরা মুরগী, পঁচা ডিম ও বিভিন্ন আবর্জনা ফেলাসহ বহুমূখী দূষণে এবং দখলের ফলে ব্যাপকভাবে দূষিত হচ্ছে।

 

এতে একদিকে দূষিত হচ্ছে নদীর পানি অন্যদিকে পরিবেশের উপরও পড়ছে বিরূপ প্রভাব।

 

দূষণের হাত থেকে এই নদীকে বাঁচাতে এখনই ব্যবস্থা না নিলে অস্তিত্ব সংকটে পড়বে এই নদী। বিশেষ করে পোল্ট্রি খামারীদের কারণে বেশিরভাগই দূষণের স্বীকার এই নদীটি।

 

কালিদাস পাহালিয়া নদীর অববাহিকার মধ্যে ফেনী সদর উপজেলার লেমুয়া, ফরহাদনগর ও ধলিয়া ইউনিয়নের কিছু এলাকা এবং সোনাগাজী উপজেলার নবাবপুর ইউনিয়নের প্রায় পুরো এলাকাজুড়ে নদীর দুই পাড়ে গড়ে উঠেছে শত শত খামার।

 

এইসব খামারের বর্জ্য ও মরা মুরগীকে বস্তায় ভরে ফেলা হয় নদীতে। পরে ওইসব বর্জ্য ও মুরগী পঁচে সৃষ্টি হয় দূর্গন্ধ। যার ফলে চরম দুর্ভোগে পড়তে হয় ঐ সব এলাকার বাসিন্দাদের।

 

এছাড়া খামারের বজ্যগুলো ও মরা মুরগী বস্তায় ভরে কোথাও কোথাও বস্তায় না ভরে খোলামেলা ছেড়ে দেয়া হয় নদীতে। দূষিত করা হয় স্বচ্ছ জলরাশিকে। নদীর পানিতে চরম দূর্গন্ধ। বাতাসের সাথে নাকে ভেসে আসছে মুরগীর বিষ্ঠার পঁচা দূর্গন্ধ।

 

পরিবেশ আদালতের পর্যবেক্ষণে বলা হয়, কালিদাস পাহালিয়া নদী ফেনী সদর উপজেলা ও সোনাগাজী উপজেলাধীন একটি গুরুত্বপূর্ণ নদী। উক্ত নদী বিভিন্ন ব্যক্তি কর্তৃক দূষণের ফলে নদীটি পরিবেশের জন্য হুমকির পথে।

 

নদী দূষণ পরিবেশ সংরক্ষণ আইন, ১৯৯৫ অনুযায়ী শাস্তিযোগ্য অপরাধ। জনজীবনের স্বাভাবিক পরিবেশ নিশ্চিত ও পরিবেশ সংক্রান্ত অপরাধ নির্মূল করার লক্ষ্যে এই সংবাদকে আমলে নিয়ে বিস্তারিত তদন্ত প্রয়োজন।

 

এজন্য সরেজমিনে তদন্ত ও প্রকৃত আসামীদের চিহ্নিতকরণ এবং কালিদাস পাহালিয়া নদীর দূষণের বিষয়ে প্রয়োজনীয় আইনানুগ পদক্ষেপ নেয়ার জন্য ফেনীর পরিবেশ অধিদপ্তরের উপ পরিচালক কে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

 

আগামী ২৪ অক্টোবর তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের কথা রয়েছে।

 

এছাড়াও এই ঘটনা তদন্তের স্বার্থে ফেনী সদর উপজেলার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও সোনাগাজী উপজেলার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এবং ফেনী মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ ও সোনাগাজী মডেল থানার অফিসার ইনচার্জকে আইনগত ও প্রশাসনিক সহায়তা প্রদানের নির্দেশ প্রদান করা হয়।

 

এটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর
© All rights reserved © 2024
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: FT It Hosting