1. admin@notunkurisylhet.com : notun :
মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ০৬:৪৫ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
বাহুবলে বিজয়ী হবার পরই কৃতজ্ঞতা জানাতে লোকালয়ে ঘুরছেন চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যান বাহুবলে জমি সংক্রান্ত বিরোধ দু’পক্ষের সংঘর্ষে আহত ৫ তীর বৃদ্ধ গুরুত্বর অবস্থায় দু’জনকে সিলেট প্রেরণ বাহুবলে ফ্রিপ প্রকল্পের কৃষক গ্রুপের প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত সহকারী প্রিজাইডিং অফিসারের মৃত্যু হবিগঞ্জে ছাড়তে হচ্ছে না ৩ উপজেলা চেয়ারম্যান এর চেয়ার বাহুবলে জামানত হারিয়েছেন বর্তমান চেয়ারম্যান খলিলসহ ৯ প্রার্থী বাহুবলে জাল ভোট দেওয়ায় একজনের ১ বছরের কারাদণ্ড, আটক ২ দ্বিতীয় ধাপের উপজেলা নির্বাচনে কেন্দ্রে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টিকারীদের প্রতি পুলিশ সুপারের হুশিয়ারী বানিয়াচংয়ে সংঘর্ষে নিহত ৩! আহত শতাধিক বাহুবলে ভাইয়ের বিয়ের অনুষ্ঠানে বোনের মুত্যু

লাখাইয়ে এ বছর বোর ধান আবাদে বাম্পার ফলনে কৃষকের মুখে আনন্দের ছোঁয়া

এম এ ওয়াহেদ লাখাই হবিগঞ্জ
  • প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ১৪ মার্চ, ২০২৩
  • ১১৬ বার পঠিত

এম এ ওয়াহেদ লাখাই হবিগঞ্জঃ হবিগঞ্জের  লাখাই উপজেলার বিভিন্ন হাওরের মাঠে কৃষকদের কষ্টের লালিত রোপণ করা বোর ধানের চারা উঁকি দিচ্ছে সোনালী সপ্নে। প্রতিটি হাওরের মাঠে  সবুজের সমারোহ বোর ধানের ক্ষেত দেখে মনে হয় এ যেন আবহমান গ্রামবাংলার উদ্ভাসিত এক অপরূপ সবুজে ঘেরা ভুমি।

 

 

লাখাই উপজেলার বিভিন্ন হাওর ঘুরে দেখা যায় মনোমুগ্ধকর সবুজ ধান ক্ষেতের অপরূপ মনোরম দৃশ্য।চলতি বোর মৌসুমে চারা রোপণের পর ফাগুনের প্রখর রোদে ক্ষেতের পরিচর্যায় ব্যস্ত সময় পার করছেন কৃষকগন।সরেজমিনে উপজেলার বিভিন্ন হাওর ঘুরে কৃষকদের সাথে কথা বলে জানা যায় বিগত বছরের তুলনায় এ বছর বোর মৌসুমে এখন পর্যন্ত ধানের চারায় তেমন কোন রোগ বালাই এখন পর্যন্ত দেখা দেয়নি।তাই বোর ধান চাষে এবারের চিত্র ভিন্ন দেখা যাচ্ছে। চারা রোপণের শেষে বেশ কয়দিন আগে রাতে বৃষ্টি হয়েছে এবং রোপণকৃত ধানের চারা কৃষকরা মনোযোগ সহকারে নিভির পরিচর্যায় ধানের চারা দ্রত বেড়ে উঠেছে।

 

তাই মাঠ গুলো সবুজে চেয়ে গেছে ধান ক্ষেত। সারাদিন কৃষক ও শ্রমজীবি কৃষকগন কর্মব্যস্ততায় মুখরিত ফসলের মাঠ গুলি।

 

আর নব দিঘন্ত মাঠ জুড়ে উঁকি দিচ্ছে কৃষকের সোনালী ভবিষ্যৎ সপ্ন।উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সুত্রে জানা যায় এ বছর চলতি বোর মৌসুমে উপজেলার ৬ টি ইউনিয়নে ১১১৭৯ হাজার হেক্টর জমিতে ইরি বোর ধান চাষের লক্ষ্য মাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে।

 

এতে কোন প্রকার ক্ষতির সম্মুক্ষীণ না হলে ফলনের লক্ষ্য মাত্রা ধরা হয়েছে ৪৪৪৬৩ মেঃ টন ধান। লাখাই উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা মোঃ শাকিল খন্দকার বলেন এ উপজেলায় খাদ্যের প্রয়োজন ২৭১৯৫ মেঃ টন চাল। চাহিদা মিটিয়ে উদ্বৃত্ত চালের পরিমান ৩২৭৯৫ মেঃ টন চাল।

 

 

তিনি আরো বলেন স্থানীয় পর্যায়ে কৃষকদের কে বিনামূল্যে সার-বীজ  কীটনাশক বিতরণ করেছি এবং আমরা মাঠ পর্যায়ে কৃষকদের কে নিয়মিত ভাবে পরামর্শ দিয়ে যাচ্ছি। তিনি আরো জানান এখন পর্যন্ত বোর ধানের চারায় কোন প্রকার রোগ বালাই দেখা দেয়নি ফলে আশানুরূপ বোর ধানের ফলনের আশাবাদী।

 

এটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর
© All rights reserved © 2024
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: FT It Hosting