1. admin@notunkurisylhet.com : notun :
বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ১০:০৮ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
বাহুবলে বিজয়ী হবার পরই কৃতজ্ঞতা জানাতে লোকালয়ে ঘুরছেন চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যান বাহুবলে জমি সংক্রান্ত বিরোধ দু’পক্ষের সংঘর্ষে আহত ৫ তীর বৃদ্ধ গুরুত্বর অবস্থায় দু’জনকে সিলেট প্রেরণ বাহুবলে ফ্রিপ প্রকল্পের কৃষক গ্রুপের প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত সহকারী প্রিজাইডিং অফিসারের মৃত্যু হবিগঞ্জে ছাড়তে হচ্ছে না ৩ উপজেলা চেয়ারম্যান এর চেয়ার বাহুবলে জামানত হারিয়েছেন বর্তমান চেয়ারম্যান খলিলসহ ৯ প্রার্থী বাহুবলে জাল ভোট দেওয়ায় একজনের ১ বছরের কারাদণ্ড, আটক ২ দ্বিতীয় ধাপের উপজেলা নির্বাচনে কেন্দ্রে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টিকারীদের প্রতি পুলিশ সুপারের হুশিয়ারী বানিয়াচংয়ে সংঘর্ষে নিহত ৩! আহত শতাধিক বাহুবলে ভাইয়ের বিয়ের অনুষ্ঠানে বোনের মুত্যু

পূর্ব গোয়ালবাড়ীতে চা বাগানের সরকারী উচু টিলা ইউপি সদস্যের নির্দেশে কর্তন

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি
  • প্রকাশের সময় : শুক্রবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী, ২০২৩
  • ১৫৩ বার পঠিত

মৌলভীবাজার প্রতিনিধিঃ মৌলভীবাজারের জুড়ী উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় চলছে অবাধে পাহাড় ও টিলা নিধনের উৎসব। পরিবেশ মন্ত্রীর কঠোর নিষেধাজ্ঞার প্রেক্ষিতে ও থামছে না এসব পাহাড় ও টিলা কাটা। জুড়ীর পূর্ব জুড়ী ও সাগর নাল ইউনিয়নে চলছে উৎসবের মধ্যে দিয়ে টিলা কাটার প্রতিযোগীতা।

 

গত বৃহস্পতিবার (২৩/২) সরেজমিনে দেখা যায়, উপজেলার ২ নং পূর্ব জুড়ী ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডে পূর্ব গোয়ালবাড়ী (হালগরা) গ্রামের আতিয়া বাগ চা বাগানের রাবার বাগান ও চা বাগানের সরকারী টিলা কেটে কৃষি জমি ভরাট করে চলছে বাড়ীর ভিটে নির্মানের উৎসব।

 

অনুসন্ধানে জানা যায়, পূর্বজুড়ীর ১নং ওয়ার্ডের প্রায় ১২ টি পরিবারের মধ্যে ৯-১০ টি অসহায় পরিবারের নিকট থেকে স্থানীয় (ময়না মেম্বার) নামের এক দালাল নগদ অর্থ নেয় গৃহ নির্মানের নামে। পরবর্তীতে স্থানীয় ইউপি সদস্য রেজান আলী সরকারী টিলা ব্যক্তিগতভাবে জরিপ করে দখল প্রদান করেন প্রায় ১০ টি পরিবারকে। উক্ত দখলদারদেরকে স্ব-স্ব দখলীয় টিলার বসত ঘরের ভিটে প্রস্তুত করতে ও নির্দেশ প্রদান করেন।

 

পরবর্তীতে দখলদাররা যৌথ ভাবে ইউপি সদস্যে মোঃ লতিবুর রহমান রেজানের নির্দেশে সরকারী বিশাল এ সু-উচ্চ টিলা কেটে পরিবেশ আইন লঙ্গন করেছেন। সরকার যেখানে অবৈধ দখলীয় ও পরিত্যাক্ত জমি উদ্ধার করে অসহায় ও গৃহহীনদের মধ্যে বণ্টন করে দিচ্ছে সেখানে সরকারী চা বাগান ও রাবার বাগানের টিলার জমি দখল করিয়ে টিলা নিশ্চিহ্ন করে কৃষি ফসলী জমি ভরাট করিয়ে দিচ্ছেন। এ বিষয়ে পরিবেশ অধিদপ্তর এবং স্থানীয় উপজেলা প্রশাসন আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনের জোর দাবী জানানো হচ্ছে।

 

এবিষয়ে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ভুক্তভোগী এ প্রতিবেদককে জানান, চাঁদার অর্থ না দেওয়াতে ইউপি সদস্য লতিফুর রহমান অরফে রেজান আলী আমার নামের ভিটের দখল আমাকে বুজিয়ে দেননি।

 

এবিষয়ে জানতে চাইলে ইউপি সদস্য মোঃ লতিবুর রহমান রেজানের সাথে বার বার যোগাযোগ করার চেষ্টা করলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

 

রাজনৈতিক মহলের ধারনা পূর্বজুড়ী ও সাগরনাল ইউনিয়নে অবাধে বড় বড় সরকারী টিলা কাটার নেপথ্য পরিবেশ ও বন মন্ত্রীকে বেকায়দায় ফেলতে উটেপড়ে লেগে আছে।

 

এটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর
© All rights reserved © 2024
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: FT It Hosting