1. admin@notunkurisylhet.com : notun :
রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ০৬:৩৩ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
বাহুবলে করাঙ্গী নদীর বাঁধ ভেঙে এলাকা প্লাবিত।। পানিবন্দি বাসিন্দারা বাহুবলে বিজয়ী হবার পরই কৃতজ্ঞতা জানাতে লোকালয়ে ঘুরছেন চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যান বাহুবলে জমি সংক্রান্ত বিরোধ দু’পক্ষের সংঘর্ষে আহত ৫ তীর বৃদ্ধ গুরুত্বর অবস্থায় দু’জনকে সিলেট প্রেরণ বাহুবলে ফ্রিপ প্রকল্পের কৃষক গ্রুপের প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত সহকারী প্রিজাইডিং অফিসারের মৃত্যু হবিগঞ্জে ছাড়তে হচ্ছে না ৩ উপজেলা চেয়ারম্যান এর চেয়ার বাহুবলে জামানত হারিয়েছেন বর্তমান চেয়ারম্যান খলিলসহ ৯ প্রার্থী বাহুবলে জাল ভোট দেওয়ায় একজনের ১ বছরের কারাদণ্ড, আটক ২ দ্বিতীয় ধাপের উপজেলা নির্বাচনে কেন্দ্রে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টিকারীদের প্রতি পুলিশ সুপারের হুশিয়ারী বানিয়াচংয়ে সংঘর্ষে নিহত ৩! আহত শতাধিক

তাহিরপুরে ‘হানাদার’ মুক্ত দিবস আজ

রাহাদ হাসান মুন্না তাহিরপুর প্রতিনিধি
  • প্রকাশের সময় : রবিবার, ৪ ডিসেম্বর, ২০২২
  • ৭৩ বার পঠিত

রাহাদ হাসান মুন্না, তাহিরপুর প্রতিনিধি : আজ ৪ ডিসেম্বর। আজকের এই দিনে ভাটির জনপদ হাওর বেষ্টিত এলাকা সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলা পাক-হানাদার মুক্ত হয়েছিলো। ১৯৭১ সালের আজকের এই দিনে পাক-হানাদারবাহিনীকে তাহিরপুর উপজেলা থেকে বিদায় নিতে বাধ্য করেছিলেন বীর মুক্তিযোদ্ধাগণ একপর্যায়ে পাক-বাহিনীরা বিদায় নিল।

 

বিদায় নেয়ার পর গোটা উপজেলার সাধারণ মানুষজন সহ বীর মুক্তিযোদ্ধাগণ আনন্দ উল্লাসে মেতে উঠেছিলেন আজকের এই দিনে।

 

পাক-হানাদারবাহিনীরা ৪ ডিসেম্বর ভোর রাতে পালিয়ে যায় তাহিরপুর উপজেলা থেকে। জয়বাংলা স্লোগানে মেতে উঠেন উপজেলাবাসী। বাংলার দামাল ছেলেরা তাদের জীবন বাজি রেখে দীর্ঘ নয় মাস যুদ্ধ করেন-দেশের জন্য, দেশের মানুষের জন্য, দেশের মাঠির জন্য। মা-বোনদের ইজ্জত কেড়ে নিয়েছিলো পাক-বাহিনী ও তাদের দোষররা।

 

তাহিরপুর উপজেলার বীর নগর গ্রামের পাক-হানাদারবাহিনীর আতংক বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলাম (বাঘা) জানান, তৎকালিন সময়ে তাহিরপুর উপজেলা (৫নম্বর সেক্টরের ৪ নম্বর) সাব সেক্টরের বড়ছড়া, টেকেরঘাটের অধীনে ছিলা। এই দিনে মুক্তিযোদ্ধারা উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় রাত জেগে যুদ্ধ করে হানাদার বাহিনীদেরকে পরাজিত করে লাল-সবুজের বিজয় নিশান ওড়ানো হয়েছিলো আজকের এই দিনে।

 

‘তাহিরপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) প্রভাকর চাকমা বলেন, আজকের এই দিনে তাহিরপুর উপজেলা পাক-হানাদারবাহিনী মুক্ত হয়েছিলো।

 

এই দিনটিকে স্বরণীয় রাখার জন্য প্রতি বছরের ন্যায় নানা কর্মসূচির আয়োজন করা হয়েছে। উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে যথা-যোগ্যভাবে র্যানলী ও আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

 

এটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর
© All rights reserved © 2024
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: FT It Hosting